20.2 C
Agartala
Wednesday, February 28, 2024
- Advertisemet -spot_img

মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি!

শ্যামলী ত্রিপুরা প্রতিনিধি, বিলোনীয়া,২৫ নভেম্বর ||যে কোন মৃত্যু দুঃখ জনক। কিন্তু এই মৃত্যুকে নিয়ে কেন রাজনীতি তা নিয়ে চলছে জল্পনা কল্পনা। হত্যা মামলার সাথে জড়িত দোষীদের সনাক্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি এই বিষয়ে কারোর দ্ধিমত নেই, থাকার কথাও না। কিন্তু রাজনৈতিক রং মিশিয়ে লাশের খেলা বিগত আমলেও ছিলো আজো অব্যাহত রয়েছে। জল ইস্যুতে ঝগড়া বিবাদের জেরে দুই প্রতিবেশীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটে বিলোনিয়া থানাধীন বগাচাতল এলাকায়। এ সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের আহত হলেও, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় বাদল ত্রিপুরা নামে এক ব্যক্তির । কিন্তু এই মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে রাজনগর মন্ডল সভাপতি রঞ্জিত সরকার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে এক প্রকার রাজনৈতিক রং মিশিয়ে দিয়ে বল ঠেলে দিলেন সিপিআইএমের দিকে। সিপিআইএমরা নাকি এই খুনের সাথে জড়িত। অথচ এলাকায় কান পাতলে শুনা যায় এইটা রাজনৈতিক ঘটনা নয়, পানীয় জল ইস্যুতে উভয় পক্ষের মারপিটের ঘটনায় এই হত্যার ঘটনাটি ঘটে। মন্ডল সভাপতির এই প্রতিক্রিয়া নিয়ে শুরু হয়ে বিভিন্ন গুঞ্জন। অনেকের প্রশ্ন তাহলে রাজনগর মন্ডল সভাপতি রঞ্জিত সরকার কি লাশ নিয়ে রাজনীতি খেলায় মত্ত হয়ে উঠেছে। খোদ মন্ডল সভাপতি কি প্রতিক্রিয়া দিলেন এই প্রতিবেদনে দেখলে তা সহজেই অনুমান করতে পারবেন, কি বলতে চাইছেন তিনি। অটল জলধারা মিশনে পাইপ লাইনের মাধ্যমে সরবরাহকৃত পানীয় জল ইস্যুতে দুই পাশ্ববর্তী পরিবার রাজকুমার ত্রিপুরা ও বাদল ত্রিপুরা পরিবারের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ শুরু হয় গত বুধবার দুপুর থেকে। এই ঝগড়া বিবাদ বৃহস্পতিবার রাতেও গড়ায়। অবশেষে রুপ নেয় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে । এই সংঘর্ষে উভয় পক্ষের আহত হয়ে বিলোনিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরমধ্যে রাজকুমার ত্রিপুরার পরিবারের মধ্যে মোট চার জন আহত হলেও অপরদিকে গুরুত্বর আহত হয় বাদল ত্রিপুরা ‌। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টা নাগাদ বিলোনীয়া থানাধীন বগাচতল এলাকায় এই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গত বৃহস্পতিবার পভীর রাতেই বিলোনিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় বাদল ত্রিপুরার । পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে গতকাল গভীর রাতেই চার জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিলোনিয়া থানাতে নিয়ে আসে। চলছে জিগাসাবাদ । জানা যায়, বাদল ত্রিপুরা পাম্প অপারেটর এক জন কর্মী। সেই সুবাদে জল নিয়ে পাড়ার এলাকাবাসীদের সাথে প্রায় সময়ই ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত থাকতো এমনই গুঞ্জন এলাকা থেকে। এরপর রাজকুমার ত্রিপুরার পরিবারের সাথেও জল নিয়ে শুরু হয় ঝগড়া বাদল ত্রিপুরার এমনই অভিযোগ । এই ঝগড়ার ফলে বাদল ত্রিপুরা নাকি তার ভাই সহ আরো কয়েকজন মিলে মুখে কাপড় বেঁধে দা, লাঠি সোটা নিয়ে রাজকুমার ত্রিপুরার বাড়িতে আক্রমন চালায় জানায় রাজকুমার ত্রিপুরার পরিবার। এই আক্রমনে রাজকুমার ত্রিপুরার পরিবারের চার জন আহত হয় । অপরদিকে বাদল ত্রিপুরা প্রতিরোধের মুখে পড়ে গুরুতর আহত হয়ে বিলোনিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়।

পূর্ববর্তী খবর
পূর্ববতী খবর

Related Articles

যোগাযোগ রেখো

82,829ভক্তমত
834অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করা
1,320গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব

সাম্প্রতিক প্রবন্ধসমূহ