29.6 C
Agartala
Friday, April 12, 2024
- Advertisemet -spot_img

অটুট বন্ধুত্বের প্রতিফলন

শ্যামলী ত্রিপুরা প্রতিনিধি, ১৪ জুলাই।। দু’দিনের সফরে ফ্রান্সে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্যারিসে পা রেখেই টুইট জানিয়ে দিয়েছেন, দুই দেশের বন্ধুত্বকে আরও মজবুত করতে তিনি বদ্ধপরিকর। বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী এলিজাবেথ বর্নের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন নমো। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন দিক নিয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতার কথা উঠে এসেছে দুই রাষ্ট্রনেতার আলোচনায়। একইসঙ্গে গুরুত্ব পেয়েছে বিদ্যুৎ শক্তি, পরিবেশ, শিক্ষা, রেল, ডিজিটাল পরিকাঠামো ও বিভিন্ন সংগ্রহশালা সংক্রান্ত বিষয়গুলি। বৃহস্পতিবার দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক ভীষণ ফলপ্রসূ হয়েছে বলেই জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি।শুক্রবার ১৪ জুলাই বাস্তিল দিবস। ফ্রান্সের জাতীয় দিবস। তার আগে প্যারিসে প্রবাসী ভারতীয়দের উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। দুই দেশের বন্ধুত্বের কথা, দুই দেশের আমজনতার মেলবন্ধনের কথা উঠে আসে নমোর বক্তব্যে। ‘বসুধৈব কুটুম্বকম’ মন্ত্রের কথা মনে করালেন প্রধানমন্ত্রী। জানালেন, তিনি এর আগেও অনেকবার ফ্রান্সে এসেছেন। কিন্তু এবারের সফর অতীতের থেকে অনেক বেশি ‘স্পেশাল’। বাস্তিল দিবসের অনুষ্ঠানে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য ফ্রান্সবাসীকে ধন্যবাদ জানালেন তিনি। বললেন, ‘বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী এলিজাবেথ আমাকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে এসেছিলেন। শুক্রবার ফ্রান্সের জাতীয় দিবসের প্যারেডে বন্ধু ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে আমি থাকব। এই সফর ভারত-ফ্রান্স অটুট বন্ধুত্বের প্রতিফলন।’বৃহস্পতিবার ভারতীয় সময় রাত ১১টা নাগাদ প্যারিসে প্রবাসী ভারতীয়দের সঙ্গে কথাও বলেন । সেখানেও মোদীর বক্তব্যে উঠে আসে ভারত-ফ্রান্স বন্ধুত্বের কথা। প্যারিসের রাস্তায় বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে ভিড় জমিয়েছিলেন প্রবাসী ভারতীয়রা। নমোকে দেখে উঠেছিল ‘ভারত মাতা কি জয়’ ধ্বনি। রাতে প্যারিসে বক্তব্য রাখার সময় সেই প্রসঙ্গও উঠে আসে প্রধানমন্ত্রীর কথায়। বললেন, ‘যখনই আমি বিদেশের মাটিতে ভারত মাতা কি জয় শুনি, আমার মনে হয় নিজের ঘরেই এসেছি।’প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে একটি টুইটে জানানো হয়েছে, নরেন্দ্র মোদী ও এলিজাবেথ বর্নের মধ্যে ভারত-ফ্রান্স পার্টনারশিপের বিভিন্ন আঙ্গিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ককে আরও জোরদার করা নিয়েই আগ্রহী দুই রাষ্ট্রনেতা। এলিজাবেথ বর্নের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি ফ্রান্সের সেনেটের প্রেসিডেন্ট জেরার্ড লার্চারের সঙ্গেও একটি বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। ভারত ও ফ্রান্সের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয় উঠে এসেছে সেই বৈঠকেও

Related Articles

যোগাযোগ রেখো

82,829ভক্তমত
834অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করা
1,320গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব

সাম্প্রতিক প্রবন্ধসমূহ