28.3 C
Agartala
Saturday, April 13, 2024
- Advertisemet -spot_img

নিখোঁজ ! মামলা রাখবে না পানিসাগর থানা

শ্যামলী ত্রিপুরা প্রতিনিধি, পানিসাগর ,২৬জুন।।পানিসাগর থানায় নিরুদ্দেশ হওয়া স্বামিকে ফিরে পেতে এসে বিমুখ হয়ে ফিরতে হয় অসহায় স্ত্রীকে।ঘটনার বিবরণে জানা যায় যে,পানিসাগরের মহকুমার অন্তর্গত উওর পদ্মবিল পাঁচ নং ওয়ার্ডে বাসিন্দা মতছিন আলীর ২৮ বর্ষিয়া পুএ জামাল উদ্দিন বিগত প্রায় চার মাস যাবৎ কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে মুম্বাই এ কর্মরত ছিলো।মুসলিম সম্প্রদায়ের আসন্ন পবিএ ঈদ উপলক্ষে বিগত ২৩ জুনে নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় জামাল।পরদিন ২৪ জুন রাএি প্রায় তিন ঘটিকা পর্যন্ত স্বামীর সাথে ফোনে কথা বার্তা হয় স্ত্রী রুমানার। ঐ সময়ে স্বামী জামাল জানান তিনি মালদা স্টেশনে এসে পৌঁছেছে।কিন্ত মুম্ভাই থেকে ট্রেনে করে আসার পথে সিট না পেয়ে দাড়িয়ে আসতে হয় মালদা পর্যন্ত।এতে ওর পা ফুলে যায়।তবে তাকে নাকি পায়ে ঔষধ লাগিয়ে সহায়তা করে ট্রেনেরই অপর এক অপরিচিত যাএি।কিন্ত এর ঘন্টা খানেক পর ফোনে যোগাযোগ করলে জামাল নাকি ওর স্ত্রী রুমানার সাথে আবোল তাবোল বলতে থাকে।এমনি করে কেটেযায় রাএি তিনটে।এর পর থেকে জামালের মোবাইল স্যুইচ অফ হয়ে পড়ে।জামালের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়াতে স্ত্রী রুমানা পরে যায় গভীর বিপাকে।স্বামীর বন্ধ মোবাইলে বার বার ফোন করেও নিরাশ হয়ে কোন মতে রাএি যাপন করে।পরদিন স্বামীর নিরুদ্দেশ এর বিষয় নিয়ে মিসিং ডায়েরি করতে ছুটে আসে পানিসাগর থানাতে।কিন্ত পানিসাগর থানার পক্ষ থেকে কোন ধরনের সহায়তার আশ্বাস না পেয়ে পুলিশের পরামর্শ মতো পরদিন তথা ২৬ জুনে ফের ছুটে আসে পানিসাগর থানাতে।ঘটনার মধ্যবর্তী সময়ে বিগত ২৫ জুনে ফের স্বামীর ফোনে ফোন করলে এক ব্যাক্তি ফোনটি রিসিভ করে এবং জানান তিনি মালবাহী ট্রেনের চালক।তিনি নাকি ঐ মোবাইল টি মালদা স্টেশনে পেয়েছেন।মোবাইলটির সঠিক মালিক না পাওয়াতে টিকিট কাউন্টারে জমা করে দেবেন বলে জানিয়েছেন। এমতাবস্থায় স্বামীকে হারিয়ে অসহায় স্ত্রী গতকাল ২৫ জুনে স্বামীকে খোঁজে পেতে আর্জিনিয়ে পানিসাগর থানায় আসে।কিন্তু স্ত্রী রুমানা অভিযোগ করেন গতকাল থেকে আজ পর্যন্ত সমস্ত দিন কাটিয়ে দিনের শেষে রুমানাকে জানানো হয় যে স্থান থেকে নিখোঁজ হয়েছে সেখানে মিসিং ডায়েরি করাতে,পানিসাগর থানাতে কোন ধরনের অভিযোগ রাখা হবে না।রুমানার অভিযোগ দীর্ঘ ৪৮ ঘন্টা সময় পানিসাগর থানার ও,সি রঞ্জিত দেব নাথ সহ অন্যান্য পুলিশ কর্মীরা তাকে হয়রানি করিয়ে আজ নিরাশকরে সাফ জানিয়ে দেয় মিসিং ডায়েরি পানিসাগরে রাখা হবেনা।পানিসাগর থানার এই ধরনের গাফিলতি সহ গড়িমশিতে ভীষন ক্ষুব্ধ অসহায় রুমানা।পানিসাগর থানার পুলিশের প্রতি আস্তা হারিয়ে শেষমেশ স্বরনাপন্ন হয় স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের নিকট এবং নিখোঁজ স্বামীকে ফিরে পেতে সহযোগিতার আর্জি জানান অসহায় রুমানা।পাশাপাশি পানিসাগর থানার পুলিশের ভূমিকার তীব্র ক্ষোভ উগরে দেন পাঁচ সন্তানের জননী স্বামী হারা রুমানা।

Related Articles

যোগাযোগ রেখো

82,829ভক্তমত
834অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করা
1,320গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব

সাম্প্রতিক প্রবন্ধসমূহ